in

মহাকাশে অনায়াসে বাঁচে যারা

পানি ও বায়ুর শূন্যতা মহকাশে বাঁচার পক্ষে বড় ধরনের অন্তরায়। অক্সিজেনের উপস্থিতি নেই বললেই চলে। এমন সমস্যার মাঝেও একদল ‘প্রাণ’ আছে যারা এই প্রতিকূল পরিবেশে বেঁচে থাকতে পারে। আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন সংস্থা বিভিন্ন অণুজীবের উপর পরীক্ষা করে দেখছিল, তারা মহাকাশে টিকে থাকতে পারে কিনা। এর শুরু অবশ্য তাদের নিজেদের সমস্যা সমাধানের তাগিদ থেকে।

বিজ্ঞানীরা যখন দেখলেন মহাকাশ স্টেশনের গ্লাস প্যানেলগুলোতে বায়োফিল্ম জমতে শুরু করেছে এবং তারা এই বায়োফিল্মগুলোর সাথে মানুষের দাঁতের বায়োফিল্মের সাথে বাহ্যিক সাদৃশ্য পেলেন। দাঁতের বায়োফিল্মে বলতে ডেন্টিস্টদের ভাষায় ‘প্লাক’কে বোঝানো হচ্ছে। দুই ধরনের অণুজীবের কলোনি একই রকম দেখে তারা কিছুটা নড়েচড়ে বসেন। এরা প্রতিকূল পরিবেশে টিকে আছে। এরপর এই অণুজীবদের নিয়ে পৃথিবীর বড় বড় সব সিমুলেটরে পরীক্ষা চালানো হয়। বেশিরভাগ যুদ্ধে এই অণুজীবরা জয়ী হয়।

চিত্রঃ মহাকাশ স্টেশনের গ্লাস প্যানেলগুলোতে বায়োফিল্ম জমতে শুরু করেছল।

এরকম উচ্চ সংবেদনশীল যন্ত্রপাতিসমৃদ্ধ পরীক্ষায় অণুজীব বিশেষ করে কিছু প্রজাতির ব্যাকটেরিয়া খুব ভালভাবে উৎরে গিয়েছে। ব্যাসিলাস গণের একটি প্রজাতি Bacillus pumilus খুব ইতিবাচক ফলাফল প্রদর্শন করেছে। এরা যে স্পোর তৈরী করে সেগুলো দীর্ঘদিন নিজেদের জিনগত পদার্থকে অতিবেগুনী রশ্মি থেকে রক্ষা করতে সক্ষম। যার ফলে সহজেই এরা উচ্চ মাত্রার বিকিরণে বেঁচে থাকতে পারে।

পৃথিবীতে নিয়ন্ত্রিত উপায়ে কৃত্রিমভাবে মঙ্গল গ্রহের পরিবেশ তৈরী করে ব্যাসিলাসের এই প্রজাতি নিয়ে পরীক্ষা করা হয়েছে এবং বেশ ইতিবাচক ফলাফল পাওয়া গিয়েছে। এদের স্পোরের প্রায় অর্ধেকই বিভিন্ন প্রতিকূল পরিবেশে সাফল্যের সাথে টিকে থাকতে পারে। এক্সটিমোফাইল নামে ব্যাকটেরিয়ার কিছু প্রজাতিকে নিয়ে নাসা বিভিন্ন প্রতিকূল পরিবেশে পরীক্ষা চালিয়েছে। সমুদ্রের গভীরতম স্থান থেকে শুরু করে বায়ুশূন্য পরিবেশে এই অণুজীবদের বিচরণ।

এই গবেষণার ফলাফল থেকে বিজ্ঞানীরা অনুধাবনের চেষ্টা করছেন কীভাবে এমন পরিবেশে অণুজীবরা তাদের জিনগত পদার্থকে রক্ষা করে চলেছে। এই পদ্ধতি যদি সঠিকভাবে জানা যায় তাহলে হয়তোবা চাঁদে, মঙ্গলে কিংবা দূরের কোনো গ্যালাক্সির অজানা গ্রহে বসবাসের কথা সায়েন্স ফিকশনের গণ্ডি ছাড়িয়ে বাস্তবে পাড়ি দেবে আরো স্বাচ্ছন্দ্যে।

তথ্যসূত্রঃ নেচার ওয়ার্ল্ড, http://www.natureworldnews.com/ararticle/6877/20140503/bacteria-survive-space-travel-iss-research-shows.htm

featured image: theatlantic.com

বিশাল তথ্য ভান্ডারের গল্প

শীত ও গ্রীষ্মে ভিন্নভাবে কাজ করে মানুষের মস্তিষ্ক