বয়মের মধ্যে মস্তিষ্ক সংরক্ষণ

প্রশ্নঃ টেলিভিশন ধারাবাহিক বা সিনেমাগুলোতে প্রায় সময়ই বয়ামের মধ্যে সংরক্ষিত মস্তিষ্ক দেখা যায়। আধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে বাস্তবে কি বয়ামে ভরে মস্তিষ্ক জীবিত রাখা সম্ভব?

উত্তরঃ কিছু নীতিগত ব্যাপার জড়িত বলে এ নিয়ে এখনো খুব বেশি গবেষণা হয়নি। একটি জীবন্ত মস্তিষ্ক শরীর থেকে আলাদা করে সংরক্ষণ করা সম্ভব, কিন্তু তা ক্ষণিকের জন্য মাত্র। নৈতিক কিছু বিষয়ের কারণে অনেক বিশেষজ্ঞ এ জাতীয় ব্যাপারগুলো একেবারে পরিহার করে চলেন।

৯০ এর দশকের প্রথম দিকে বিজ্ঞানীরা একটি স্তন্যপায়ী জীবের মস্তিষ্ক আলাদা করে তা সংরক্ষণ করেছিলেন। এটি আট ঘন্টা পর্যন্ত সক্রিয় ছিল। এটি এবং এর পরে সংগঠিত এই জাতীয় সকল গবেষণাগুলোতে গিনিপিগের মস্তিষ্ক ব্যবহার করা হয়েছিল।

গিনিপিগের মস্তিষ্ক ইঁদুরের মস্তিষ্কের তুলনায় আকৃতিতে বড় এবং গবেষণার জন্য অধিক উপযোগী। শরীর থেকে আলাদা করার পর মস্তিষ্কটি কতক্ষণ সক্রিয় থাকে তা পরীক্ষা করে দেখেন গবেষকরা। শুধুমাত্র সক্রিয়তার সময়কাল পরীক্ষা করাই ইউরোপীয় গবেষণাগুলোর উদ্দেশ্য ছিল না, পাশাপাশি এদের অধিকাংশই সংগঠিত হয়েছিল একটি পূর্ণাঙ্গ মস্তিষ্কের সামগ্রিক আকৃতি সম্বন্ধে অবগত হওয়ার উদ্দেশ্য নিয়ে।

একটি জীবের শরীর থেকে তার মস্তিষ্ক ‘আলাদা’ করে রেখে গবেষণা করার মধ্যে নৈতিকতা-সম্বন্ধীয় কিছু সমস্যা জড়িত, তাই যুক্তরাষ্ট্রে গুটিকয়েকবার মাত্র এ নিয়ে গবেষণা হয়েছে। এর বেশি এগোনো যায়নি।

তবে বাস্তবসম্মতভাবে এবং নৈতিকতা-বিরোধী কোনো সমস্যা ছাড়া এ কাজ করা সম্ভব। সেক্ষেত্রে মৃত প্রাণীর মস্তিষ্ক ব্যবহার করতে হবে, যা নিষ্ক্রিয় হলেও ঠিকভাবে সংরক্ষণ করা যাবে। ২০১৫ সালে বিজ্ঞানীরা একটি ইঁদুরের নিউরাল সার্কিট সংরক্ষণ করেছিলেন। এজন্য তাঁদেরকে রাসায়নিক পদ্ধতিতে চর্বি জাতীয় অণু, প্রোটিন সংযোজন এবং মস্তিষ্কের পানির জায়গায় প্লাস্টিক ব্যবহার করতে হয়েছিল।

চিত্রঃ বয়ামে আইনস্টাইনের মস্তিষ্ক

যতদিন না পর্যন্ত একে স্ক্যান করে এবং পুনরায় এর নিউরাল নেটওয়ার্ক তৈরি করে কোনো রোবট দেহে বা ভার্চ্যুয়াল এনভায়রনমেন্টে ব্যবহার করার জন্য নতুন প্রযুক্তি আবিষ্কৃত না যাচ্ছে ততদিন পর্যন্ত একে বয়মে ভরে একটা শেলফে রেখে অনায়াসে সংরক্ষণ করা যাবে। এ উদ্যোগ নিঃসন্দেহে অভিনব এবং ভালো, কেননা অনন্তকালের জন্য বয়মের মতো আবদ্ধ স্থানে জীবন্ত কিছু আটকে রাখার চেয়ে এটা অনেকগুণ কম ভয়াবহ!

তথ্যসূত্রঃ ডিসকভার ম্যাগাজিন

featured image: digitallusions.deviantart.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *