সকল নীল চোখের মানুষের আছে একটি সাধারণ পূর্বপুরুষ

বিশ্ববিখ্যাত সংগীতশিল্পী টেইলর সুইফট, নীল চোখের এক অনন্যসুন্দরী। তার রূপ-লাবণ্যে যে কত সহস্র লোকের হ্রদয় হরণ হয়েছে তার হিসেব নেই। কিন্তু তিনি কীভাবে পেলেন এই নীল চোখ, যা তাকে অন্যান্যদের মাঝে ব্যতিক্রম করে তুলেছে?

বিশ্ববিখ্যাত সংগীতশিল্পী টেইলর সুইফট; image source: onehallyu.com

নীল চোখ আমাদের কাছে খুব ব্যতিক্রম মনে হলেও বাস্তবে কিন্তু তা নয়। ব্রিটেনের প্রায় ৪৮% মানুষ নীল চোখের অধিকারী।কোপেনহেগেন বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষকের গবেষণায় জানা যায়, বর্তমান মানুষদের মাঝে নীল চোখের বৈশিষ্ট্যটি একটিমাত্র সাধারণ পূর্বপুরুষ থেকে এসেছে। গবেষণায় আমাদের জিনোমে প্রায় ১০ হাজার বছর পূর্বের একটি মিউটেশনের সন্ধান পাওয়া যায়। গবেষণা বলছে এই মিউটেশনই বর্তমান নীল চোখের জন্য দায়ী।

কী এই মিউটেশন? অধ্যাপক হানস এইবার্গ বলেন, “প্রকৃতপক্ষে আমরা সকল মানুষই বাদামী চোখের অধিকারী ছিলাম। কিন্তু আমাদের ক্রোমোসোমের OCA₂ নামক একটি জিনে মিউটেশন ঘটে। মিউটেশনের ফলে এমন একটি ‘জেনেটিক সুইচ’ গঠিত হয় যা আমাদের বাদামী চোখ গঠন বন্ধ করে দেয়।”

OCA₂ জিন একটি প্রোটিনের জন্য কোড করে। এই প্রোটিন আবার কোষে মেলানিন প্রস্তুতের সাথে জড়িত। আর এই মেলানিন আমাদের চুল, চোখ ও ত্বকের রঙের জন্য দায়ী। প্রকৃতপক্ষে, মিউটেশনের ফলে উদ্ভুত ‘সুইচ’ OCA₂ জিনের কাজ সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করে দেয় না। এটি বরং এই জিনের বহিঃপ্রকাশকে অনেকাংশে বাঁধাগ্রস্ত করে। যার ফলে মেলানিন উৎপাদন হ্রাস পায় এবং বাদামী আইরিশের পরিবর্তে নীল আইরিশ গঠিত হয়।

OCA₂ জিনের উপর ‘সুইচ’টির প্রভাব খুবই নির্দিষ্ট। কারণ, OCA₂ জিন সম্পূর্ণরূপে বন্ধ হয়ে গেলে মানুষের চুল, ত্বক ও চোখ মেলানিন বিহীন হতো। এরকম অবস্থাকে বলা হয় ধবলরোগ বা Albinism।

ধবল রোগ; image source: imgur.com

সীমিত জিনগত বৈচিত্র্য

বাদামী থেকে সবুজ চোখের রঙের ক্ষেত্রে সকল বৈচিত্র্য আইরিশের বিদ্যমান মেলানিনের পরিমাণ দ্বারা ব্যাখ্যা করা যায়। কিন্তু নীল চোখের ব্যক্তিদের চোখে মেলানিনের খুব সামান্য মাত্রারই বৈচিত্র্য রয়েছে। এইবার্গ বলেন,“এ ঘটনা থেকে আমরা বলতে পারি যে, নীল চোখের সকল মানুষ একটিমাত্র পূর্বপুরুষের সাথে সম্পর্কিত। তাদের সকলের ডিএনএ-র একই জায়গায় একই রকম ‘সুইচ’ উদ্ভাবিত হয়েছে।” অন্যদিকে বাদামী চোখের ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে ডিএনএ-র মেলানিন উৎপাদনের জন্য দায়ী স্থানটি হুবহু এক না হয়ে অনেকটা বৈচিত্রপূর্ণ হয়।

প্রকৃতি আমাদের জিনকে অদলবদল করে

মিউটেশনের ফলে বাদামী চোখ থেকে নীল চোখ সৃষ্টি কোনো ইতিবাচক কিংবা নেতিবাচক নয়। এটি একটি নিরপেক্ষ মিউটেশন। এই মিউটেশন অনেকটা মানুষের চুলের রঙ, জন্মদাগ কিংবা টাক মাথার মতো। এগুলো মানুষের টিকে থাকার সম্ভাবনাকে বৃদ্ধি বা হ্রাস কোনোটাই করে না।

তথ্যসূত্রঃ https://knowridge.com/2016/11/people-with-blue-eyes-have-a-single-common-ancestor/

Feature image : omgfacts.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *